অনলাইনে বাংলাদেশের ই পর্চা খতিয়ান বের করার নিয়ম

অনলাইনে বাংলাদেশের ই পর্চা খতিয়ান বের করার নিয়ম  :  বিডিতে ই পর্চা মানে ইলেকট্রনিক পোর্চা। জমি সংক্রান্ত বিভিন্ন নথি অনলাইনে CS, SA, SB, BR এর ডুপ্লিকেট, প্যামফলেট, খাতা বা ই-পোর্চার মাধ্যমে সত্যায়িত কপির মাধ্যমে সংগ্রহ করা যেতে পারে।

ভূমি মন্ত্রণালয় কোনো জমির মালিকের বাড়িতে জমির মালিকানা যাচাই করার জন্য বা বাড়িতে অনলাইন খাতা/পত্রিকা সঠিক কিনা তা পরীক্ষা করার জন্য বা কেনার আগে অনলাইনে জমির প্রকৃত মালিকানা যাচাই করার জন্য অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে একটি ডাটাবেস তৈরি করছে। জমি ইতিমধ্যে, বাংলাদেশের 64টি জেলার বেশির ভাগের আরএস লেজার সহ অন্যান্য খাতাগুলি এখন ভূমি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট http://eporcha.gov.bd/ থেকে সহজেই অ্যাক্সেস করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ সরকার ডিজিটাল গড়ার লক্ষ্যে এ কাজে আরও আধুনিকায়ন আনতে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে। ভবিষ্যতে, জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসে না গিয়ে ঘরে বসেই অনলাইনে জমির মালিকানা, জমির খাতা এবং ইপোরচা চেক করা খুব সহজ। ফলে জমি কেনার পর প্রতারণার ফাঁদে পড়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যাবে।

ই পর্চা কি ?


খতিয়ান যে পর্চা তাই প্রাণা খতিয়ান ও ই পর্চা ব্যাপার। জেনেসিস এটা আরো কল. রাষ্ট্রীয় জরিপকৃত জমিদার মেলুজা সূত্রে এক বা একাধিক ভূমিকম্পের বিবরণ যে পক্ষের মধ্যে ঘটনাটি ঘটেছে তার নথিপত্র রাখে। আইনের বক্তৃতাটি ফাঁকা রাখা হয়েছে কারণ খতিয়ান-জরিপ সময়কালে জড়িত ধূপটি বাংলাদেশ ফর্ম-নং-5462 (সংযুক্তি) এর চূড়ান্ত আকারের পাশাপাশি নম্বর/স্থানের বিবরণে প্রকাশিত হয়নি। জমির নাম, পাতার নাম, ঠিকানা, ছেলের বিবরণ, মুনিরের বর্ণনা, মৌজা বিভাগ, মাফলার সংক্ষিপ্ত নম্বর (জেলাল নম্বর), সীমানা, জিরির ছাত্র, দালালের নাম, অংশ ইত্যাদি বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মূল জুনিয়র প্রকৃতির দেওয়া যেতে পারে। বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় লেজার সংখ্যায়।

ই-পর্চা অনলাইনে কীভাবে আবেদন করবেন


কম্পিউটার বা হাতে থাকা স্মার্টফোনের মাধ্যমে ঘরে বসে কীভাবে সহজেই জমির মালিকানা, জমির খাতা, বা প্যামফলেট চেক করবেন?

ই-পর্চা অনলাইনে কীভাবে আবেদন করবেন

 

অনলাইনে ই-পর্চা দেখতে বা পেতে আপনাকে যা করতে হবে


আপনি সাধারণত তিনটি উপায়ে একটি গ্রাউন্ড রেজিস্টার পেতে পারেন-

  1. ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন করুন
  2. ইউনিয়ন তথ্য পরিষেবা কেন্দ্র বা জেলা ই-সেবা কেন্দ্র থেকে আবেদন করুন বা
  3. আপনি ডিজিটাল রেকর্ড রুম থেকে আপনার জমির সার্টিফিকেট বইয়ের একটি কপি পেতে পারেন।

বর্তমান কম্পিউটার ও ইন্টারনেটের যুগে নতুন প্রজন্মের ছেলে-মেয়েদের তথ্যপ্রযুক্তি সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান থাকলেও জমি অধিগ্রহণ সম্পর্কে তাদের ন্যূনতম জ্ঞান নেই। ফলে দেখা যায়, অনেক পিতার মৃত্যুর পর তারা তাদের পৈতৃক জমির সঠিক হিসাব খুঁজে পান না। কিংবা বিভিন্ন দালালের সহায়তায় নতুন জমি কেনার সময় প্রতারিত হয়ে লোকসানের মুখে পড়েন। কিন্তু জমি-জমা সম্পর্কে ন্যূনতম জ্ঞান থাকলে তিনি পৈতৃক জমির হিসাবসহ অন্যান্য জমির পুরো হিসাব করতে পারতেন।

জমির মালিকানা সহজেই অনলাইনে যাচাই করা যায় এবং জমির খাতা/ই-পর্চা অনলাইনে পুনরুদ্ধার করা যায়। সে কারণে জমির অন্যান্য বিষয় এখানে আলোচনা করা হবে না। যাইহোক, যদি আপনার জমির নথি সম্পর্কে কিছু প্রাথমিক ধারণা না থাকে, তাহলে আপনাকে অনলাইনে জমির মালিকানা যাচাই করতে বা জমির খাতা/ই-পর্চা পেতে কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। তাই অনলাইনে জমির মালিকানা যাচাই করার আগে এখানে জমির কিছু মৌলিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হলো। যাইহোক, আপনার যদি জমি এবং কাপড়ের অভিজ্ঞতা থাকে তবে আপনি বিস্তারিত না পড়ে সরাসরি পোস্টের নীচে যেতে পারেন। www eporcha gov bd খতিয়ান ডাউনলোড করুন।

বাংলাদেশে অনলাইন ই-পর্চা কিভাবে চেক করবেন


ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যেকোন ই-পরচা লাইক- (CS, SA, RS) পেতে আপনাকে ভূমি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট https://land.gov.bd/ ভিজিট করতে হবে অথবা সরাসরি http://eporcha.gov.bd/ এই ঠিকানায় প্রবেশ করতে হবে। আপনি লেজারের জন্য আবেদন করে বা লেজার সার্চ বোতামে ক্লিক করে লেজারটি অনলাইনে দেখতে পারেন।

 

ই-পর্চা বা খতিয়ান কত প্রকার?


আমাদের দেশে সাধারণত চার ধরনের খতিয়ান রয়েছে। যেমন

  1. বিএস খতিয়ান/সিটি জরিপ, (City Survey), BS Khatiac Check online BD
  2. সিএস খতিয়ান, (Cadastral Survey), CS Khatiac Check online BD
  3. আরএস খতিয়ান (Revisional Survey), RS Khatiac Check online BD
  4. এসএ খতিয়ান, (State Acquisition Survey), SA Khatiac Check online BD
  5. বিআরএস খতিয়ান, BRS Khatiac Check online BD
  6. পেটি খতিয়ান, Peti Khatiac Check online BD
  7. দিয়ারা খতিয়ান। Diara Khatiac Check online BD

 

About Post Author

Leave a Comment

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: