তাজা খবর

চাকরির বয়স শেষ হতাশায় ছিঁড়লেন একাডেমিক সার্টিফিকেট

চাকরির বয়স শেষ হতাশায় ছিঁড়লেন একাডেমিক সার্টিফিকেট

নীলফামারী ডিমলায় মোঃ বাদশা মিয়া নামের এক যুবক গত ১৯ সেপ্টেম্বর দুপুর ১২টার দিকে ফেসবুক লাইভে এসে তার চাকরির বয়স শেষ হতাশায় ছিঁড়লেন একাডেমিক সার্টিফিকেট

বাদশা মিয়ার বাবা একজন মধ্যবিত্ত কৃষক উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ সুন্দর খাতার স্থায়ী বাসিন্দা।

জানা যায়, বাদশা মিয়া ২০০৭ সালে জিপিএ ৫.০০ এর মধ্যে ৩.৯২ জিপিএ নিয়ে বিজ্ঞান বিভাগে দাখিল, ২০০৯ সালে জিপিএ ৫.০০ এর মধ্যে ৪.০৮ জিপিএ নিয়ে বিজ্ঞান বিভাগে আলিম এবং ২০১৪ সালে পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগে জিপিএ ৪.০০ এর মধ্যে ২.৬৬ জিপিএ নিয়ে অনার্স পাশ করেন।

গত জুনে সরকারি চাকরির বয়স শেষ হওয়ায় হতাশায় ভুগছিলেন, দিন দিন হতাশা বেড়ে যাওয়ায় আজ দুপুর ১২টার দিকে তার AR Badsha নামের ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে তার সকল একাডেমির সার্টিফিকেট ছিঁড়ে দেন।

তার সাথে কথা বললে তিনি প্রথম আলোর নিউজকে বলেন, সার্টিফিকেটের চাকরির বয়স শেষ, এখন সে সার্টিফিকেট রেখে লাভ কি? বয়স থাকতেই তো চাকরি নিতে পারিনি, এখন বয়স শেষ, তাহলে সে সার্টিফিকেট রেখে লাভ কি?

তিনি আরও বলেন, আমার ধারনা বর্তমান সমাজে সবচেয় অসহায় মধ্যবিত্ত কিংবা নিম্ম মধ্যবিত্ত পরিবারের উচ্চ শিক্ষিত ছেলেরা। এরা না পারে সহজে চাকরি ম্যানেজ করতে, আবার অর্থের অভাবে না পারে ব্যবসা বানিজ্য করতে। এদের ব্যথা বুঝবার ক্ষমতা সবার নাই। চাকরির বয়স শেষ হতাশায় ছিঁড়লেন একাডেমিক সার্টিফিকেট

রুহুল আমিন, ডিমলা(নীলফামারী)প্রতিনিধি

One Comment

  1. An impressive share! I’ve just forwarded thios nto a
    colleague whho hhad been doing a litle research on this.
    Andd he actually ordered mee lunh simply because I discofered iit foor him…
    lol. So let mme reword this…. Thank YOU forr the meal!!
    Butt yeah, thanx for speneing thhe tme tto talk about his issue here on your website.

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button