পাশে রয়েছ প্রমাণ কর , ইউক্রেনের বার্তা

পাশে রয়েছ প্রমাণ কর , ইউক্রেনের বার্তা   :  রুশ সেনা খারকিভে তাণ্ডব চালাচ্ছে ।গুঁড়িয়ে দিচ্ছে সরকারি ভবন। কিয়েভের ঘাড়ের কাছে শ্বাস ফেলছে। রুশ সেনার হামলায় মারা গিয়েছেন অন্তত সাড়ে তিনশো জন। রয়েছে অসংখ্য শিশু। দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন পাঁচ লক্ষ মানুষ। একা কুম্ভ আগলে পড়ে রয়েছেন তিনি। কোণঠাসা। তবু ঝুঁকতে নারাজ ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি

কিছুটা মরিয়া হয়েই ফের ইউরোপীয় ইউনিয়নকে বার্তা দেন, ‘‌পাশে আছো, প্রমাণ কর’‌। সেই আবেদনে সাড়া দিল ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

ইউক্রেনকে সদস্যপদ দিতে চলেছে তারা। বিশেষ প্রক্রিয়ায়। ভোট শুরু হবে বিকেল সাড়ে চারটেয় (‌স্থানীয় সময়)‌। বিশেষ প্রক্রিয়ায় ইউরোপীয় ইউনিয়নকে সদস্যপদ দিতে সম্মত হয়েছে ইইউ।

 

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি লিখিত দিয়েছিলেন ইউরোপীয় ইউনিয়নকে। জানিয়েছিলেন, তাঁকে ইউরোপীয় ইউনিয়নে সামিল করা হোক। বলেন, ‘‌ইউরোপীয় ইউনিয়ন আমাদের সঙ্গে নিলে অনেক শক্তিশালী হবে, এটা নিশ্চিত করে বলতে পারি।’‌ এর পর ইউরোপীয় পার্লামেন্টকে একটি ভিডিও বার্তাও পাঠান জেলেনস্কি। তাতে বলেন, ‘‌তোমাদের ছাড়া ইউক্রেন আরও একা হয়ে যাচ্ছে। আমাদের সব শহরই প্রায় দখলিকৃত, তার পরেও আমাদের জমি, স্বাধীনতার জন্য আমরা লড়াই করছি। কেউ আমাদের ভাঙতে পারবে না, কারণ আমরা শক্তিশালী, আমরা ইউক্রেনিয়।’‌

এর পরেই রীতিমতো নাটকীয়ভাবে জেলেনস্কি বলেন, ‘‌প্রমাণ করো, তোমরা আমাদের পাশে রয়েছ। প্রমাণ করো, তোমরা আমাদের যেতে দেবে না। প্রমাণ করো, তোমরা ইউরোপীয়, তাহলে মৃত্যুর বিরুদ্ধে জীবন জয়ী হবে। অন্ধকারের বিরুদ্ধে জীবন জয়ী হবে।’‌ এর পরেই জেলেনস্কিকে ইউরোপীয় পার্লামেন্টে সদস্যরা উঠে দাঁড়িয়ে কুর্নিশ জানালেন।

জেলেনস্কি যখন মুখে এসব বলেছেন, তখনই কিয়েভের দিকে এগিয়ে আসছে ৪০ মাইল দীর্ঘ রুশ বাহিনী। যুদ্ধ যান, ট্যাঙ্কার, গোলা নিয়ে ধেয়ে আসছে হাজার হাজার রুশ সেনা। উদ্দেশ্য, কিয়েভ দখল। তাহলেই পতন ইউক্রেনের!‌ সেকথা অবশ্য আগেই বলেছিলেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। বলেছিলেন, রাশিয়া আদতে রাজনৈতিকভাবে ইউক্রেনকে ধ্বংস করতে চায়।

 

About Post Author

Leave a Comment

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: